Saturday, 20 July 2019

মংডূ,আরাকান। গত ২৯ আগস্ট পুলিশ উত্তর মংডু থেকে একজন মানুষকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে
লুন্দন থানার নগারসার কেউ(নিতু প্রু) গ্রাম থেকে যখন সে রাখালদের পিছু নিয়েছিল।

রাখালরা মাঠে তাদের গবাদিপশু চারণ করছিল,একজন গ্রামের মোড়ল এই ব্যপারের সত্যতা নিশ্চিত করেন।
উক্ত মানুষ রাখাইন ভাষাতে কথা বলছিল এবং একজন গ্রাম প্রশাসককে জানান, তিনি আরাকান এর সিতোয়ে
এর বাসিন্দা এবং এখানে তার আত্নীয়দের সাথে দেখা করতে এসেছেন।
খবর পেয়ে,একদল পুলিশ লুন্দন থানা থেকে এসে তাকে একটি পিস্টল,৩০ রাউন্ড গুলি,৬টি বোমা ও একটি
ছুরিসহ গ্রেফতার করে।
পরে যখন উক্ত খবর স্থানীয় মিলিটারী ক্যাম্পে পৌছায় একদল আর্মি একজন ক্যাপ্টেনের নেতৃত্বে এসে
তাকে নিয়ে যায় এই বলে সে একজন আর্মি সদস্য এবং পাগল হয়ে ২ নম্বর ক্যাম্প থেকে ২-৩ দিন
আগে হারিয়ে যায়।"
ক্যাপ্টেন গ্রামবাসীদের অনুরোধ করে বলেন যাতে তারা উচ্চ কতৃপক্ষকে এই ব্যাপারে কিছু না বলে।
আটককৃত ব্যক্তি নিজেকে একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে স্বীকার করে নি এবং এটি বলতে থাকে যে
আমি যেখানেই যায় নিরাপদ থাকব।
ভারতীয় সংবাদপত্রে গুজব যখন ছড়িয়ে যায় এই বলে যে রোহিঙা সশস্ত্র বাহিনী বার্মা আক্রমন করবে
বার্মা বিশেষ ব্যাটেলিয়ন মোতায়েন করেছে তংব্রুতে যা মংডূর একটি উপশহর।উক্ত ব্যাটেলিয়ন এর অপারেশন
কমান্ডার সশস্ত্র ব্যক্তির ব্যাপারে খবর নেন বলে জানা গেছে।উক্ত ব্যক্তি একজন উত্তর মংডুর লংদুন ক্যাম্পে আছেন।
অধিকাংশ গ্রামবাসী বিশ্বাস করেন উক্ত ব্যক্তি আর্মি সদস্য নন এবং হয়ত সে আরাকান লিবারেশন পার্টি
বা কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য।এবং উক্ত পিস্তল হয়ত তার নিজের ব্যবহারের জন্য এবং বোমাগুলো বিভিন্ন
জায়গায় স্থাপন করে রোহিঙাদের জড়ানোর চেষ্টা করতে পারে এই ব্যাপারে যাতে রোহিঙা ও রাখাইনদের
মধ্যে আবার দাঙ্গা সৃষ্টি হয়।
এছাড়া গতকাল গ্রামবাসী সশস্ত্র রাখাইন জঙ্গিদের দেখতে পান বনে প্রবেশ করতে এবং গ্রামবাসীরা ভয়ে
আছেন হয়ত তারা আক্রমনের স্বীকার হতে পারেন।
রাখাইন সম্প্রদায় প্রেসিডেন্ট থিন সেন এর সম্পূর্ন সহযোগীতা পান এবং আরাকান রাজ্যের দাঙ্গার ব্যাপারে
নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন।তিনি একজন সফল একনায়ক সামরিক পোষাকে এবং পশ্চিম বিশ্বকে বার্মাতে
আকৃষ্ট করতে সফল হয়েছে।
এই ব্যাপারে আর্মি ক্যাম্পে যোগাযোগ করা হলে লুন্দন এ তারা এই ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া দেয় নি তবে একজন
আর্মির সুত্র উক্ত ঘটনা সত্য বলে স্বীকার করেছে।