Thursday, 21 September 2017

মংডূ,আরাকান|| বার্মা বর্ডার গার্ড পুলিশ এর সহকারী ডিরেক্টর জেনারেল সম্প্রতি স্থানীয় সদর দপ্তরী বৈঠক এর আয়োজন করেন।উক্ত
বৈঠকে তিনি স্থানীয় ধর্মীয় নেতা,স্থানীয় নেতাদের নিমন্ত্রন করেন, এছাড়া নিকটবর্তী মংডূ ৬ নং এরিয়ার বাসিন্দাদেরও ডেকে পাঠানো হয়।

বৈঠকের আলোচ্যবস্তু আদমশূমারী ছিল বলে জানান মুক্তার আহমেদ নামে একজন অংশগ্রহনকারী।
উক্ত মিটিং এ ডিডিজি বলেন,"আমরা কেবল জনসংখ্যার লিস্ট জমা করছি, আদমশূমারী না,ভবিষ্যতে এখানে বিদ্রোহীরা আসতে পারে
এবং তাই যারা মারা গেছেন তাদের অপসারণ ও নবজাতকদের নিবন্ধন করতে হবে।"
অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে একজন জানান যে, ডিডিজি তাদের অনুরোধ করেছেন যাতে সবাই তাদের স্ব স্ব এলাকার অধিবাসীদের নিবন্ধন করতে
উদ্যোগ নেন। একজন অংশগ্রহনকারী জবার দেন তারা গ্রামবাসীদের সাথে কথা বলে তাদের জানাবেন।
উক্ত বৈঠকে অভিবাসন কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরাও অংশ নেন।
স্থানীয় কতৃপক্ষ,বর্ডার পুলিশ ও অভিবাসন কর্মকর্তারা মার্চ থেকে গ্রামবাসীদের বাধ্য করতে চাচ্ছেন যাতে তারা আদমশূমারীতে অংশ নেন ।গ্রামবাসীরা
বলেছেন যদি তাদেরকে নিজেদের রোহিঙ্গা হিসেবে পরিচয় দিতে দেয় তবেই তারা নিবন্ধন করবে। এই অভিমত প্রকাশ করেন রফিক নামে এক যুবক।
এছাড়া বিজিপি পুলিশ রোহিঙ্গাদের থেকে অর্থ আদায় করছে যখন তারা সদর গেট অতিক্রম করে, সাদা কার্ডধারীদের থেকে ১০০০ ক্যত করে আদায় করা হচ্ছে।
সাদাকার্ডধারী যাদের জাতীয়তা মুসলিম দেওয়া তা অতি দ্রুত বাঙালী করা হবে বলে জানান। দুই ধরনের সাদা কার্ড আছে যার একটিতে বাঙালী ও অপরটিতে
মুসলিম লেখা, বলে জানান উক্ত যুবক।