Wednesday, 21 August 2019

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি                                                                                                                                           তারিখ ১৯ জানুয়ারী

২০১২

১৩ জন রোহিঙারা তালেবান নয়,এটা পূর্ব পরিকল্পিত

১৪ জানুয়ারী ২০১২ তারিখে বার্মিজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লে জেনারেল কো কো বলেন যে, ১৩ জন রোহিঙ্গা যাদেরকে গত বছর সীমান্ত এলাকা থেকে
গ্রেফতার করা হয়েছে তাদেরকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।উল্লেখ্য তাদেরকে তালেবান এর সাথে জড়িত ও আগ্নেয়াস্ত্র প্রশিক্ষন নেওয়ার অভিযোগে

গ্রেফতার করা হয়েছিল।নিম্নবর্নিত রোহিঙা সংগঠনসমূহ তার এই বক্তব্যের বিরোধিতা করেন।
আটককৃতরা সবাই নিরীহ মুসলিম রোহিঙ্গা গ্রামবাসী।তাদের তালেবান দূরের কথা কোন জঙ্গি সংগঠন এর সাথে জড়িত থাকার কোন প্রশ্ন আসে না।
এবং তারা শান্তিপ্রিয় ব্যক্তি যারা সমাজে সম্মান ও মর্যাদার সাথে বসবাস করে আসছেন।
উল্লেখ ভূল খবর পেয়ে বাংলাদেশ থেকে বার্মায় আসে ও মংডূর সীমান্তবর্তী এলাকা কাম্মনগেসিক এ মার্চ ২০১০ এ বৈঠক করে এবং নাসাকা
উক্ত স্থানে গোপন খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ৮০জনকে গ্রেফতার করে তাদের সাথে তালেবানের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ আনে।
গত ৭ নভেম্বর ২০১০ এ অনুষ্ঠিত সাধারন নির্বাচনে এসপিডিসি সর্মথিত ইউএসডিপি ও রোহিঙ্গা রাজনৈতিক দল এনডিপিডি এর মধ্যে
সংঘর্ষ হয়,অধিকাংশ রোহিঙা এনডিপিডিকে ভোট ও সর্মথন দিলেও নাসাকার অনুচর ও কতৃপক্ষ ইউএসডিপিকে সর্মথন করে।রোহিঙ্গাদের
কাছে এনডিপিডি জনপ্রিয় দেখে উক্ত রোহিঙ্গাদেরকে নাসাকার হাতে আটক করায় নাসাকা ও তার সহযোগীরা এবং এর মাধ্যমে তারা তাদের
রাগের বহিঃপ্রকাশ ঘটায়।উল্লেখ্য,আটককৃত সবাই এনডিপিডির সর্মথক।
নাসাকা  পরিচালক লে কর্নেল অং গি মংনামা গ্রামে গত ২১ মার্চ ২০১১ তে এক আলোচনা সভায় বলেন যে, আটককৃতদের সাথে তালিবানের
সংশ্লিষ্টতা ভিত্তিহীন একটি খবর এবং এটি ইউএসডিপি ও এনডিপিডি এর সর্মথকদের প্রতিদ্বন্দিতার ফলে সৃষ্ট।অনুসন্ধানের পর তাদের সসম্মানে
মুক্তি দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।এ ব্যাপারে গ্রাম প্রশাসন ও ধর্মীয় নেতাদের বক্তব্য আমলে নেওয়া হবে।রাজনৈতিক কারণে
উক্ত মামলাগূলো দায়ের করা হয়েছে সেকশান ১৭(১) ও ১৭(২) অনুযায়ী।তাদেরকে গত ৮ এপ্রিল ২০১১ তারিখে মংডু কোর্টে হাজির করা হয় এবং
নাসাকা এ কেসে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করছে বিধায় তাদের যথাযথ বিচার সম্ভব হচ্ছে না।
নারিঞ্জিরা নামক একটি অনলাইন বাংলাদেশী রাখাইন পরিচালিত দৈনিক তাদের সাইটে মুখোশসহ কতিপয় তালেবান যোদ্ধার সাথে
রোহিঙ্গাদের জড়িয়ে খবর পরিবেশন করে যা এ কেসের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করেছে।উল্লেখ তাদের খবরে কোন সুত্র ছাড়া
পক্ষপাতযুক্ত খবর পরিবেশন করে রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে তারা খারাপ ধারণা সৃষ্টি করছে এবং এর সম্পাদক মিডিয়া নীতি থেকে অনেক
দূরে সরে এসেছে ও বাকস্বাধীনতার অপব্যবহার করেছে।
এটা ভুল সুত্র দ্বারা প্রভাবিত ভুল সংবাদ ছাড়া কিছুই নয় জানান থাইল্যান্ড ভিত্তিক আরাকান প্রজেক্ট এর ক্রিস লেভা।তিনি আরো বলেন যে
আটককৃতদের মুজাহিদিনদের সম্পর্কের কোন প্রমান নেই।
আমরা তাই উ থিন সেন সরকারকে অনুরোধ করছি যাতে তারা এই ব্যপারে একটি নিরপেক্ষ পক্ষপাতহীন তদন্ত পরিচালনা করে আইনের
শাসন প্রতিষ্ঠা করেন ও শান্তি,নিরাপত্তা ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত করে।এছাড়া আমরা রাষ্ট্রপতির নিকট অনুরোধ করছি যাতে তাদের মানবিক
দিক বিবেচনা করে মুক্তি দেন।

 

সংগঠন :

এনডিপিএইচআর (in exile) Contact:                           + 33629258793
আরাকান রোহিঙ্গা ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন (ARNO)              + 880-1558486910
বার্মিজ রোহিঙা এসোশিয়েশন জাপান (BRAJ)                     +8180-30835327
বার্মিজ রোহিঙ্গা কমিউনিটি অস্ট্রেলিয়া (BRCA)                   +61- 433231202
বার্মিজ রোহিঙ্গা অর্গানাইজেশন ইউকে (BROUK)                 +44-7888714866
রোহিঙা কমিউনিটি নরওয়ে (RCN)                               +47 92428989